Submit your Article

    লেখা পাঠাবার ইমেইল:

parisvisionnews@yahoo.com

Bangla version

Member login

Notice Board

দৃষ্টি আকর্ষণ
 লেখা আহবান 
আপনার প্রিয় প্যারিস ভিশন নিউজ ডটকমের জন্য লেখা পাঠাবার আহবান খবর,গল্প,প্রবন্ধ,কবিতা,ভ্রমন কাহিনী ইত্যাদি আজ ই পাঠিয়ে দিন
Email:parisvisionnews@yahoo.com

 

বাংলাদেশ সংবাদ

অভিবাসীদের জন্য ইউরোপকে আরো উদ্যোগী হওয়ার আহ্বান জাতিসংঘের

PDFPrintE-mail

বাংলাদেশ সংবাদ - Political news

Last Updated on Thursday, 28 May 2015 01:10 Thursday, 28 May 2015 01:06

অভিবাসীদের জন্য ইউরোপকে আরো উদ্যোগী হওয়ার আহ্বান জাতিসংঘের

ডেস্ক রিপোর্ট
ডাবলিন: জাতিসংঘ মহাসচিব মঙ্গলবার তার ব্রাসেলস সফরের প্রাক্কালে বলেছেন, ভূমধ্যসাগর পাড়ি জমানো অভিবাসীদের সহায়তায় ইউরোপকে অবশ্যই আরো বেশি উদ্যোগ নিতে হবে।
এদিকে ইউরোপীয় ইউনিয়নের একটি নৌ-অভিযান পরিকল্পনা জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে।
ডাবলিনে আয়ারল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী এন্ডা কেনির সঙ্গে এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে বান কি মুন ভূমধ্যসাগরে তল্লাসি ও উদ্ধার অভিযান আরো জোরালো করার আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘ইউরোপ আরো বেশি সহায়তা দিতে পারে।’
বান কি মুন বলেন, ‘আমি ইউরোপীয় নেতৃবৃন্দকে এই সমস্যা আরো সর্বাত্মক ও সমম্বিত উপায়ে মোকাবেলার আহ্বান জানাচ্ছি।’
তিনি বলেন, এ সমস্যা সমাধানে কোনো উদ্যোগ নেয়ার ক্ষেত্রে অবশ্যই যে সব দেশ থেকে এ সমস্যা উদ্ভুত হয়েছে সে সব দেশেই এ সমস্যার মূল কারণ খুঁজতে হবে।
তিনি বলেন, সহৃদয়তা ছাড়া আপনারা এটি করতে পারবেন না। সবার আগে আমাদের মানুষের জীবন বাঁচাতে সর্বোচ্চ চেষ্টা করতে হবে।
ইউরোপীয় ইউনিয়নের মন্ত্রীবর্গ গম সপ্তাহে ভূমধ্যসাগরে মানব পাচারকারীদের বিরুদ্ধে লড়তে একটি সামরিক অভিযানের পরিকল্পনা অনুমোদন করেছে। তবে লিবিয়ার জলসীমায় মানবপাচারকারীদের নৌকা ধবংস করার প্রস্তাবটিতে এখানো জাতিসংঘের অনুমোদনের প্রয়োজন রয়েছে।
 

টিএসসি আসল ঘটনা, যা শুনলে অবাক হবেন আপনিও (ছবি এবং ভিডিওসহ)

PDFPrintE-mail

বাংলাদেশ সংবাদ - Political news

Thursday, 28 May 2015 00:22

টিএসসি আসল ঘটনা, যা শুনলে অবাক হবেন আপনিও (ছবি এবং ভিডিওসহ)

ছবিতে বামদিকে যা দেখছেন তা ফেব্রুয়ারীর বইমেলার ঘটনা। এই পহেলা বৈশাখে ঘটে যাওয়ার মতই আরেকটি ‘সবার চোখের সামনে’ ঘটে যাওয়া ঘটনা। পুলিশ সেইবারও বলেছিল ‘উপযুক্ত প্রমানের অভাবে আমরা কিছু করতে পারছি না। এতো মানুষের ভিড়ে অপরাধী সনাক্ত করা অনেক কঠিন’। প্রিয় পুলিশ বাহিনী, এই নিন- একজনকে খুঁজে বের করে দেয়া হলো, এইবার গ্রেফতারের কাজটা সেরে ফেলেন। নাকি আবার অজুহাত খুজবেন? পুলিশ কে বারবার খোঁচাইতে আমাদেরও ভাল্লাগে না, কিন্তু হাতে গোনা অল্প কয়েকজন ভালো মানুষ ছাড়া আপনাদের গোটা Police Force মনে হয় একই ভাবে চলে! সবাই ঘুমালে কিভাবে হবে? তিতুমীর কলেজের ছাত্র, কলেজটা মহাখালী তে। পুলিশের গাড়ির ড্রাইভার কে বললে নিয়ে যাবে। বাসায় আর থানায় বসে হাওয়া খেয়ে লাভ হবে? রাস্তায় সারাদিন দাড়ায় কষ্ট করেন এইসব ‘নেকামি-মার্কা’ বলে এখন সিম্প্যাথি নেয়ার চেষ্টা করবেন না। একটা পদবী দেয়া হয়েছে, তার সম্মান রাখেন, কাজ করেন, সালাম-সম্মান আপনা-আপনিই পাবেন …

সিসিটিভি’র ভিডিও দেখতে ক্লিক করুন

নিউজের ভিডিও দেখতে ক্লিক করুন

বিশ্লেষনের ভিডিওগুলো দেখতে ক্লিক করুন

অরজিনাল ঘটনার ভিডিও দেখতে ক্লিক করুন

বর্ষবরণের উৎসবে নারীদের যৌন হয়রানির ঘটনার পর শাহবাগ থানার এক উপপরিদর্শককে (এসআই) প্রত্যাহার করা হয়েছে, যিনি ঘটনার সময় ওই এলাকায় নিরাপত্তার দায়িত্বে ছিলেন।

a

একুশে ফেব্রুয়রির সেই ঘটনার আরেকটি ছবি। একই গ্রুপ।

পহেলা বৈশাখে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি এলাকায় নারী নির্যাতনের ঘটনায় জড়িতদের ছবিসহ প্রতিবেদন প্রকাশের পর আজ একাত্তর টিভির বিশেষ প্রতিনিধি ফারজানা রূপা ও তার পরিবারের সদস্যদের হত্যার হুমকি দিয়েছে ‘আনসারুল্লাহ বাংলা টিম’। নিষিদ্ধ ঘোষিত এ জঙ্গি সংগঠনের রাজশাহী শাখার সহকারী পরিচালক দাবি করে এক ব্যক্তি ফারজানা রূপার ফেসবুকে একাধিক বার্তায় হুমকি দেন বলে জানা যায়।

বাংলা ট্রিবিউনকে হুমকির বিষয়টি নিশ্চিত করেন একাত্তর ‌‌‌টিভির সাংবাদিক সামিয়া জামান।

পহেলা বৈশাখে টিএসসিতে নারী নির্যাতনের ঘটনা নিয়ে একাত্তর টিভিতে প্রচারিত প্রতিবেদনে ফারজানা রূপা সিসিটিভির ফুটেজ বিশ্লেষণ করে কয়েকজন সন্দেহভাজনকে শনাক্ত করেন। পুলিশের সরবারহ করা ১ ঘণ্টার ওই ফুটেজে ফারজানা দেখান পাঞ্জাবি পরিহিত ও মুখে গোঁফহীন দাড়িওয়ালা এক ব্যক্তি বার বার একই জায়গায় ঘুরছিল। এসময় মাথায় পট্টি বাধা আরও কয়েক ব্যক্তিকে একই জায়গায় দেখা যায়।

মঙ্গলবার পহেলা বৈশাখে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসিতে বর্ষবরণ উৎসবে আগত নারীদের শ্লীলতাহানি করে কতিপয় বখাটে যুবক।
কয়েকটি ছবিতে আসা তাদের একজন হলেন বেনজির আহমেদ। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মাস্টারদা সূর্য সেন হলে থাকেন।
রাষ্ট্র বিজ্ঞান বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। হল শাখা ছাত্রলীগের পদধারী ও সক্রিয় কর্মী।
তিনি বিভিন্ন সময়ে ক্যাম্পাসে কুকর্ম করে বেড়ান বলে তার বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে।
সত্য কখনও গোপন থাকে না? প্রশাসন কি কিছুই করবে না?

পহেলা বৈশাখে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি এলাকায় নারী নির্যাতনের ঘটনায় জড়িতদের ছবিসহ প্রতিবেদন প্রকাশের পর আজ একাত্তর টিভির বিশেষ প্রতিনিধি ফারজানা রূপা ও তার পরিবারের সদস্যদের হত্যার হুমকি দিয়েছে ‘আনসারুল্লাহ বাংলা টিম’। নিষিদ্ধ ঘোষিত এ জঙ্গি সংগঠনের রাজশাহী শাখার সহকারী পরিচালক দাবি করে এক ব্যক্তি ফারজানা রূপার ফেসবুকে একাধিক বার্তায় হুমকি দেন বলে জানা যায়।

বাংলা ট্রিবিউনকে হুমকির বিষয়টি নিশ্চিত করেন একাত্তর ‌‌‌টিভির সাংবাদিক সামিয়া জামান।

পহেলা বৈশাখে টিএসসিতে নারী নির্যাতনের ঘটনা নিয়ে একাত্তর টিভিতে প্রচারিত প্রতিবেদনে ফারজানা রূপা সিসিটিভির ফুটেজ বিশ্লেষণ করে কয়েকজন সন্দেহভাজনকে শনাক্ত করেন। পুলিশের সরবারহ করা ১ ঘণ্টার ওই ফুটেজে ফারজানা দেখান পাঞ্জাবি পরিহিত ও মুখে গোঁফহীন দাড়িওয়ালা এক ব্যক্তি বার বার একই জায়গায় ঘুরছিল। এসময় মাথায় পট্টি বাধা আরও কয়েক ব্যক্তিকে একই জায়গায় দেখা যায়।
——————————————————————–

পুলিশ/ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী নাকি কিছুই খুঁজে পায় না। কিন্তু আমরা সবাই কিন্তু ঠিকই খুঁজে পাই। ধন্যবাদ সবাইকে যারা সাহায্যের হাত বাড়িয়েছেন। এইবার দেখা যাক আমরা আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এবং তার সরকারকে ধন্যবাদটা দেয়া যায় নাকি তাদের দায়িত্ব যথাযথ ভাবে পালন করার জন্য। আপনারা ৭১ এর ধর্ষকদের বিচার করেছেন, ২০১৫ সালের ধর্ষকদের বিচার এখন জাতি দেখতে চায়। পুরো বাংলাদেশ এখন তাকিয়ে দেখছে।
Don’t let us down.
—–

প্রিয় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সদস্যরা,
এই নিন পহেলা বৈশাখে ‘সবার চোখের সামনে’ ঘটে যাওয়া ঘটনা এর একগাদা মানুষের মধ্যে একজনের পরিচয়। যেহেতু CCTV Footage প্রমাণ করে কাজটা Preplanned এবং Organized, তাহলে একজনকে ধরলে আরও গোটা কয়েকজনকে তো ধরাই যাবে। আশা করি এখনও বলবেন না ‘উপযুক্ত প্রমানের অভাবে আমরা কিছু করতে পারছি না। এতো মানুষের ভিড়ে অপরাধী সনাক্ত করা অনেক কঠিন’। আশা করি এটাও জিজ্ঞেস করবেননা যে কিভাবে আমরা/রিপোর্টাররা বলেছে ‘কাজটা Preplanned এবং Organized’, তাহলে তো আপনাদের Training দেয়া লাগবে এখন! ভাই, এইবার গ্রেফতারের আর রিমান্ডে নেয়ার কাজটা সেরে ফেলেন। রিমান্ডে নেয়ার সময় নিজের মা/বোন/বউ এর চেহারা মাথায় রেখেন, এদের দলীয় পরিচয় না। নাকি ধরে নিবো আমরা যে এইভাবে খুঁজে খুঁজে এনে দিলেও কাজ হবে না? নাকি আবার অজুহাত খুজবেন? দেখুন, পুলিশ কে বারবার খোঁচাইতে আমাদেরও ভাল্লাগে না, কিন্তু সবাই ঘুমালে কিভাবে হবে? কাওকে না কাওকে তো কাজটা করা লাগবে। প্লিজ!

সিসিটিভি’র ভিডিও দেখতে ক্লিক করুন

নিউজের ভিডিও দেখতে ক্লিক করুন

বিশ্লেষনের ভিডিওগুলো দেখতে ক্লিক করুন

অরজিনাল ঘটনার ভিডিও দেখতে ক্লিক করুন

a

This e-mail address is being protected from spambots. You need JavaScript enabled to view it

এই সকল বীর ”পুরুষদের” কাছে একজন ”হিজরা”ও নিরাপদ নয়, আর সাধারন নারীরা !!…
আক্রান্ত হিজরাটার আশে পাশের দাঁত বের করা হায়েনাগুলোকে যেখান থেকে হোক খুঁজে বের করে খাসি করুক সাধারন ভাই/বোনেরাই।
আইন গাইন বিচার শালিশে যেহেতু এখন আর কাজ হচ্ছে না, তাই এই সব পাগলা পারভার্ট কুকুরগুলোকে পেটানোর মুগুরটা নিজের হাতেই তুলে নিতে হবে জনতাকেই ।

অনেক হয়েছে প্রতিবাদ মানববন্ধন বিচার চাওয়াচাইয়ি। এই সবে আর কিচ্ছু হবে বলে মনে হয় না। হলে এক একটা ঘটনা ঘটে যাওয়ার সময় আইন রক্ষাকারি হ্যাডমওয়ালারা তাকায়ে তাকায়ে মজা না নিয়ে একশনে নামতো।
তারা যেহেতু একশনে নামবেনা, সেহেতু পাব্লিককেই এখন ডাইরেক্ট একশনে নামতে হবে।

নইলে মনে রাখবেন, আগামী দিন আপনার মা – বোন – বউ – মেয়ে – ভাগ্নিকেও দেখতে হবে এইরকম ছবির মধ্যে।

প্রতিবাদ ফ্রতিবাদ নয়… ইটস হাই টাইম টু ‘ডু’ সামথিং ডেসপারেটলি …

পহেলা বৈশাখে ঢাকা ভার্সিটিতে ঘটে যাওয়া নোংরা ঘটনাকে কেন্দ্র করে কিছু কিছু বিভ্রান্তিকর ভুল তথ্যও ছড়াচ্ছে মানুষ। ঢাকা ভার্সিটিতে সেদিন অনেক ন্যাক্কারজনক ঘটনাই ঘটেছে, কিন্তু এগুলোর বাইরেও মানুষ কিছু অন্য ঘটনাও এক ফেলছে। এটা নিয়ে জগন্নাথ ইউনিভার্সিটির ছাত্র রোহানের পোস্ট টা হুবুহু তুলে ধরলাম।
“চারিদিকে একটি ছবি নিয়ে কত যে বিভ্রান্তি শুরু হয়েছে। ঢাবির টিএসসিতে কয়েকজন নারীকে শ্লীলতাহানীর ঘটনার সাথে জবির ছাত্রলীগ কর্মী গণধোলাইয়ের ঘটনাকে কতিপয় গণমাধ্যম এক করে একাকার করে ফেলেছে।
এ বিষয়ে লিখতে চাই….
জবির বাসে ছাত্রীদেরকে উত্ত্যক্ত করার ঘটনায় ছাত্রলীগ কর্মী সধারণ শিক্ষার্থীদের হাতে গণধোলাইয়ের শিকার হয়। এই গণধোলাইয়ের ছবি আমি তুলেছিলাম এবং Bangla Tribune এ নিউজ করেছিলাম। এছাড়া আরো কয়েকটি গণমাধ্যমে এই নিউজটি ছবি সহ প্রকাশিত হয়। কিন্তু উক্ত ছবিটিকে ঢাবির টিএসসিতে নারী শ্লীলতাহানীর ছবি বলে চালিয়ে দিয়েছে কয়েকটি গণমাধ্যমে। ঢাবির এই ঘটনার তদন্তে হাই কোর্টে রুল পর্যন্ত হয়েছে। ফলে এখানে এখন এমন অবস্থার সুষ্টি হয়েছে যে, জবির সাধারণ শিক্ষার্থী যারা ছাত্রী উত্ত্যক্তকারী ছাত্রলীগ কর্মীকে গণধোলাই দিলো তারা এখন হুমকির মুখে পড়ে যাচ্ছে। যে ছবিটি নিয়ে এত কাহিনি হয়েছে সেটির আগের এবং পরের একটি ছবি সহ উক্ত ছবিটি পোস্ট দিচ্ছি। একটি ছবিতে পাঠক খেয়াল করলে দেখতে পাবেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসের নাম লেখা আছে। এবং কর্মীটির শরীরে কোন সময়ই কিছু ছিলানা। তার কাধে একটি টিশার্ট ছিল, হাতে একটি গামছা বাধা ছিল। প্যান্ট ছিল কালো। দয়া করে এই পোস্টটি শেয়ার করুন। আমি চাই এই বিভ্রান্তির অবসান হোক।”

a

সিসিটিভি’র ভিডিও দেখতে ক্লিক করুন

নিউজের ভিডিও দেখতে ক্লিক করুন

বিশ্লেষনের ভিডিওগুলো দেখতে ক্লিক করুন

অরজিনাল ঘটনার ভিডিও দেখতে ক্লিক করুন

” মেয়েটি ঘুরতে বের হয়েছিলো স্বামীর সাথে। সেখান থেকে যখন তাঁকে উদ্ধার করা হয় গায়ে কোন শাড়ি ছিল না মেয়েটির। স্বামীকে মারা হচ্ছিল বেধড়কভাবে। সম্ভ্রম বাঁচাতে উদ্ধারকারীদের মধ্যে একজন মেয়েটিকে তাঁর গায়ের পাঞ্জাবী খুলে পরিয়ে দেন। তাদের মধ্যে একজন তখন বলছিলো এমন দৃশ্য আর পাওয়া যাবে না। ভিডিও করেন তাড়াতাড়ি। ভিডিও করা হয়।

বিচারহীনতার সংস্কৃতিতে এ রাজ্যে রাক্ষস কুলের দাপটে

ক্ষমতার আচলের ছায়ায় অসুর শক্তির থাবায়
ত্বকীর রক্তে লাল শীতলক্ষ্যার কালো জল
ত্বকীর মায়ের কান্না বাপের বেদনা
অন্যদিকে
১৯৭১ এর নারীর ইজ্জত লুণ্ঠনে যারা হিংশ্র দানব ছিল …
ছিলনা মা বোনের কোন ভেদ __

 আর ২০১৫ তে বাংলা নব বর্ষে টি , এস , সি … জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ব বিদ্যালয়ের

নারীর ইজ্জত লুণ্ঠনে যারা হিংশ্র দানব …
ছিলনা যাঁদের মা বোনের কোন ভেদ ___
ভেদ ১৯৭১ ওরা রাজাকার আল বদর পাকিস্তানি দোসর
আর
আজকের ওরা সরকারের তথা ছাত্র লীগের নামধারী কুলাঙ্গার ।
১৯৭১ এর বিচার হচ্ছে
আর
২০১৫ এর ওদের বিচার আদৌ হবে কি ?
নাকি বিচারহীনতার রাজনীতিতে ত্বকী হত্যার মতো অভিযুক্তরা ঘুরে বেড়াবে দম্বভরে ক্ষমতাধারীদের চারপাশে ___
ধন্যবাদ বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন নেতাদের
যারা কাপুরুষের ভিড়ে
সাহস নিয়ে মেয়েদের সম্ভ্রম রক্ষ্যায়
পুরুষের মত প্রতিবাদেএগিয়ে এসেছে ।
” একজন মা তার ছোট ছেলে মেয়েকে নিয়ে ঘুরতে এসেছিলেন টিএসসিতে। ভীড়ের মধ্যে লীগের ছেলেদের হাতে যখন পড়লেন তখন তিনি চিৎকার করে বলছিলেন- ভাই,আমার সাথে আমার বাচ্চা আছে, আমাকে ছেড়ে দেন। কিন্তু তাকে ছাড়া হয়নি। অসংখ্য হাত তার শরীরে। বাচ্চাগুলো চিৎকার করছে। ভয়ে একটি বাচ্চা অজ্ঞান হয়ে পড়ে থাকে। ”
মাফ চাইবো না বোন তোর কাছে ঘৃণা চাইবো মন থেকে, পারবি করতে?
মাফ চাইবো না মা তোমার কাছে ঘৃণা চাইবো মন থেকে, পারবা করতে?
অনেক কিছু লিখতে ইচ্ছে করছে কিন্তু হাতের আঙ্গুল গুলো বারবার কাঁপছে। টিভিতে যখন ফুটেজ গুলো দেখাচ্ছিল আমি লজ্জায় হেট হয়ে যাচ্ছিলাম আমার মা-বোন এর সামনে!
মা ঘটনা টা ভালো করে জানে না, আমাকে জিজ্ঞেস করছিল কি হয়েছে। আমি কিভাবে বলি আমার মাকে তার সন্তান সম কিছু ছেলেই কিছু নারীর….. cry emoticon

‘পরনে এলোমেলো শাড়ি। ব্লাউজ কিছুটা ছেঁড়া। দুই চোখে অশ্রু। চোখে-মুখে ভয়-আতঙ্কের ছাপ স্পষ্ট। প্রায় বিবস্ত্র অবস্থায় তিনি ঢুকে পড়লেন রোকেয়া হলের গেস্টরুমে। এমন দৃশ্য দেখে দৌড়ে গেলাম। কান্নায় ভেঙে পড়ছিলেন মেয়েটি। এর পর যা বললেন, তা অবিশ্বাস্য, মর্মান্তিক। রাজু ভাস্কর্যের কাছে কিছু যুবকের হাতে চরমভাবে লাঞ্ছিত হয়েছেন তিনি। তাকে শাড়ি পরিয়ে দিয়ে আব্রু রক্ষা করেছি।

‘ নববর্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে নিপীড়নের শিকার এক তরুণীকে রোকেয়া হলে আশ্রয় নেওয়ার পর তাকে সাহায্য করতে এগিয়ে যান ওই হলের ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ইশাত কাশফিয়া ইরা। গতকাল রাতে ঢাবির মার্কেটিং বিভাগের এ ছাত্রী সমকালের কাছে সেদিনের ঘটনার বিবরণ দেন। তিনি এ ঘটনা হলের প্রভোস্টকেও জানিয়েছেন।

ইরা সমকালকে বলেন, সেদিন পুরো ক্যাম্পাস লোকে লোকারণ্য। কোথাও পা ফেলার জায়গা নেই। সন্ধ্যার দিকে আমার ভাইয়ের সঙ্গে হলের ফটকে দাঁড়িয়েছিলাম। হঠাৎ দেখি, একজন নারী হলের সামনে রিকশা থেকে নামছে। পোশাক একেবারেই এলোমেলো। দ্রুত হলের ভেতরে ঢুকলেন তিনি। গেস্টরুমে গিয়ে বসলেন। তার চেহারায় ক্ষোভ, ভয় আর আতঙ্কের ছাপ। তিনি জানালেন, একটি বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থায় কাজ করেন তিনি।

থাকেন আজিমপুরে। হবু বরের জন্য টিএসসি এলাকায় অপেক্ষা করছিলেন। ওই সংস্থায় নিরক্ষর মানুষকে নিয়ে তাদের কাজ করতে হয়। টিএসসি এলাকায় এসে যে আচরণের শিকার হয়েছেন, তা জীবনের সবচেয়ে ভয়ঙ্কর অভিজ্ঞতা। কিছু তরুণ বাজে মন্তব্য করে তাকে ঘিরে ফেলে। তাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র মনে হয়নি। তারা তাকে প্রায় বিবস্ত্র করে ফেলে।

a

হেলা বৈশাখের বর্ষবরণে সোহরাওয়ার্দীর টিএসসিস্থ গেটে পহেলা বৈশাখের মিলনমেলায় উৎসব উদযাপনে আগত ‪#‎নারীদের‬ উপর সংঘটিত বর্বরোচিত ও ন্যাক্কারজনক যৌন ‪#‎নিপীড়নের‬ ঘটনার কিছু ‪#‎নরপশুর‬ ‪#‎ছবি‬ পাওয়া গিয়েছে। প্রশাসন এবং জনসাধারনের কাছে অনুরোধ এদের চিনে রাখুন, এদের ধরিয়ে দিন, এদের চিহ্নিত করুন। ‪#‎সিটিজেন_জারনালিজম‬ ‪#‎রানার‬
 
নামঃ মামুন
শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ঃ University London International Programmes.
বিষয়ঃ এল এল বি
কেউ চিনে থাকলে আমাদের অথবা আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে জানান।
ফেসবুক প্রোফাইল


গত ফেব্রুয়ারীতে বইমেলায় এই লোকই নারী লাঞ্ছিত করার ঘটনায় জড়িত ছিলো , এমনকি ঢাকা ট্রিবিউনের ক্যামেরা ছিনিয়ে নেয়ার প্রয়াস চালায় , যেটা সেদিনের পত্রিকায় এসেছিলো… এবং এটা নিয়ে ফেসবুকে আওয়াজও উঠেছিলো …তখন যদি পুলিশের পক্ষ থেকে ব্যবস্থা নেয়া হতো তাহলে হয়তো পহেলা বৈশাখের ঘটনা এড়ানো যেত …কিছুক্ষন আগে আমি নিজে রমনা থানার ওসি জনাব সিরাজুল ইসলামকে ফোন দিয়ে পহেলা বৈশাখের ঘটনার তদন্তের অগ্রগতি সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি সেই পুরোন কথাই বলেন… তদন্ত চলছে,সিসিটিভি ফুটেজ কালেক্ট করা হইছে ইত্যাদি ইত্যাদি… তখন আমি তাকে এই ঘটনাটি উল্লেখ করে ওই সময় আপনারা কি ব্যাবস্থা নিয়েছেন জানতে চাইলে তিনি হঠাৎ উত্তেজিত হয়ে যান , কারন জিজ্ঞেস করলে তিনি জবাব দেন “ভিক্টিম নিজে এসে অভিযোগ না করলে আমার কিছু করার নাই… এমনকি এটাও বলেন যখন হইছে তখন বলেন নাই কেন, এখন আসছেন আমাদের জানাইতে, এক পর্যায়ে বিষয়টি নিয়ে কথা বলতে চাইলে তিনি বলেন আমি আর এ বিষয়ে কথা বলতে চাইনা বলে লাইনটি কেটে দেন… এভাবে যদি জঙ্গনের হেফাজতের দায়িত্বে থাকা পুলিশ নিজের কর্তব্য ভুলে গিয়ে বরং উল্টো আমাদের ব্লেম করলে আমরা কাদের উপরে ভরসা রাখতে পারি ?? সেদিন পুলিশ যদি অ্যাকশন নবিতো তাহলে হয়তোবা পহেলা বৈশাখের ন্যাক্কারজনক ঘটনাটি এড়ানো যেত … ।সময় এসেছে উত্তর জানবার , সময় এসেছে তাদের জবাবদিহিতার …… আমি শুরু করেছি এবার পালা আপনার… নাগরিক হিসেবে তাদের কাছ থেকে জবাব চাওয়ার অধিকার আপনার আছে , এবং এটা আপনার দায়িত্ব … আর কত চুপ করে থাকবো আমরা… আমদের ট্যাক্সের টাকায় তাদের ভরণপোষণ হয়, আমরা সেটার পাই পাই হিসেব চাই … !!
ওসি ০১৭১৩৩৭৩১২৭ নাম মো: সিরাজুল ইসলাম
ডিসি- ০১৭১৩-৩৭৩১২০ (রমনা থানা)

 

অধ্যাপিকা সৈয়দা জাকিয়া খাতুনের ইন্তেকাল

PDFPrintE-mail

বাংলাদেশ সংবাদ - Political news

Saturday, 23 May 2015 16:31

অধ্যাপিকা সৈয়দা জাকিয়া খাতুনের ইন্তেকাল

 

বিশিষ্ট শিক্ষাবিদঅবিভক্ত পাকিস্তানের প্রথম মহিলা আলেম ও সোহরাওয়ার্দি কলেজঢাকার প্রাক্তন ভাইস প্রিন্সিপাল অধ্যাপিকা সৈয়দা জাকিয়া খাতুন ৮৬ বৎসর বয়সে আজ (২১শে মে ২০১৫) সকাল ৮ ঘটিকায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইউনাইটেড হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন। (ইন্নালিল্লাহে ওয়া ইন্না ইলাহে রাজেউন)। গত ১৮ই এপ্রিল ২০১৫ তারিখে ব্রেইন স্ট্রোকের পর হতে তিনি এই হাসপাতালেই চিকিৎসাধীন ছিলেন। আজ বাদ আছর গুলশান আজাদ মসজিদে উনার জানাযা শেষে বনানী কবরস্থানে তাঁর লাশ দাফন করা হবে

মরহুমা ৫০ এর দশকের মাঝামাঝি অবিভক্ত পাকিস্তানের প্রথম মহিলা টাইটেল পাশ আলেম ছিলেন। সে সময়ে তিনি বাংলাবাজার গার্লস হাই স্কুলের শিক্ষকতা করতেন। পরবর্তীতে দুইটি বিষয়ে মাস্টার্স ডিগ্রি অর্জন করে ৬০ এর দশকে তিনি বদরুন্নেসা কলেজে অধ্যাপনা শুরু করেন। একই কলেজে দুই যুগ অধ্যাপনা করে তিনি সোহরাওয়ার্দি কলেজের ভাইস প্রিন্সিপাল হিসেবে যোগদান করেন এবং সেখান থেকেই চাকরি জীবন শেষ করেন

সৈয়দা জাকিয়া খাতুন এর বড় ছেলে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক এবং ছোট ছেলে ইউনাইটেড হাসপাতালের কনসালটেন্ট সার্জেন ও ডাইরেক্টর। উল্লেখ্যমরহুমা বিশ্ব ইসলামী আন্দোলনের মুরব্বি মরহুম অধ্যাপক গোলাম আযম এর স্ত্রী সৈয়দা আফিফা আযম এর বড় বোন। তাঁর পিতা মরহুম মওলানা আব্দুস সালাম অবিভক্ত পাকিস্তানের একজন খ্যাতিমান আলেম ও শিক্ষাবিদ ছিলেন। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা ভাইস চ্যান্সেলর মরহুম অধ্যাপক এমএ বারীর পিতাঅবিভক্ত ভারত উপমহাদেশের প্রখ্যাত আলেম মরহুম মাওলা না আব্দুল্লাহিল বাকী মরহুমার ফুফা

-p v logo.jpg - 4.35 Kb

 
 

বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক এখন ঐতিহাসিক মুহূর্তে

PDFPrintE-mail

বাংলাদেশ সংবাদ - Political news

Saturday, 23 May 2015 14:26

বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক এখন ঐতিহাসিক মুহূর্তে

 

‘এটা আওয়ামী লীগের নাটক'

PDFPrintE-mail

বাংলাদেশ সংবাদ - Political news

Saturday, 23 May 2015 14:16

‘এটা আওয়ামী লীগের নাটক'

 
 

Page 1 of 567

Historic words of 2011

Facebook like Icon